সময় বয়ে যায়…নদীর স্রোতের প্রায়

88
35

সময় বহিয়া যায়…

————————–

এক সময় দেখা যেত, অফুরন্ত অবসরে পড়ার জন্য নিত্য নতুন বই-পুস্তক খুঁজতাম। পড়ার বই থাকতো না, থাকতো সময়! আর এখন পছন্দের বই সংগ্রহে রেখেও পড়ার সময় কি আগের মত পাই? যদি সব প্রিয় বই পড়ার সময়টুকু থাকতো?
“Had we but World enough and Time!”

প্রিয়তমাকে নিজের করে নিয়ে প্রেমের তাজমহল করতে চায় অনেকেই: ‘তোমার জন্য মরতে পারি’, তুমি যদি চাও পদ্মা মেঘনা যমুনা দেব পাড়ি’… আরো কত স্বপ্ন! কিন্তু বেরসিক সময় প্রেমের সে জয়গানে যেন বড় বাঁধা! “Men are April when they woo”, but ”Men are December when they wed”..

ছোটবেলায় রমজানে দিন কাটানোর জন্য কত পন্থা ছিল! কেরাম, লুডু, মঙ্গল-পাঠানসহ কত সব ক্রীড়ায় সময় কাটানোর চেষ্টা! তবু ইফতারের সময় যেন আসতো না! মাঝে মধ্যে আজান দেরিতে দেয়ার মোয়াজ্জিনের উপর কতই না অপ্রকাশিত ক্ষোভ ছিল! আর আজ? সেহেরি আর ইফতারের মধ্যকার সময় কত দ্রুতই না চলে যায়!! “Time, you old gypsy man”!

দিনের শুরুতে ‘To do List’, মাসের শুরুতে ‘Reminder list’ বা Updated ‘Wunderlist’ এ দিনক্ষণ অনুযায়ী কর্মপরিকল্পনা কিংবা বছরের শুরুতে বার্ষিক কিবা পঞ্চবার্ষিক দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা
প্রণয়ন করে তার কত শতাংশ শেষ করতে পারি বা পেরেছি? কতো দেশ বা দেশের কত জেলা বা ঐতিহাসিক স্থান ভ্রমণের পরিকল্পনা বা আকাঙ্ক্ষা ছিল বালকবেলায় বা কৈশোরে আর আজ শহরে নিজের বাসা থেকে স্থায়ী ঠিকানা গ্রামে যেতে পারেন কত দিনে? বিনা পাসপোর্টে যেতে পারি তেমন সুযোগে নিজের দেশের কয়টি জেলায় যেতে পেরেছি? বিদেশ ভ্রমণ দূরে থাক!
আর আগামীকাল করবো বলে কত কাজ রেখেছি ফেলে, সযত্নে, But tomorrow NEVER comes..

“To-morrow, and to-morrow, and to-morrow,
Creeps in this petty pace from day to day,
To the last syllable of recorded time;”

বলা হয়, সময়ই জীবন। স্কুলজীবনে “সময়ের মূল্য” রচনাটি ছিল সাজেশনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণদের অন্যতম। নবীজী বলেছেন, তোমরা ব্যস্ততার পূর্বে অবসর সময়কে খুব গুরুত্বপূর্ণ মনে করবে। লউহে মাহফুজের যে ‘লা-মকান’ (ভুল ক্ষমার্হ) রয়েছে যেখানে সময় বা কালের ধারণা ভিন্ন, যেখানে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বিরাজ করে বর্তমান, সে স্থান ছাড়া বাকী সব সৃষ্টিতে, সব আসমানে সময় বহমান, অতীত-ভবিষ্যতের ভীড়ে খুব দ্রুত ক্ষয়িষ্ণু ‘বর্তমান’; মহান আল্লাহ কোরআনের সুরা আছরে আছর সময়ের কসম খেয়েছেন:

“By time, indeed, mankind is in loss, Except for those who have believed and done righteous deeds and advised each other to truth and advised each other to patience.”
(Quran, 103: 1-3 –Surah Al-Asr)

জীবনের সবচেয়ে দামী সময় কোনটা? ভবিষ্যতের আশঙ্কায় যখন অনেক বর্তমান অপব্যয়িত হয়ে অতীতের কৃষ্ণ গহ্বরে যায় ডুবে, তখন বর্তমানটা কি আসলেই কাজে লাগাই? সে প্রশ্ন নাই বা করি।
বলা হয়, The most important period of life is NOW.

কেননা,

“And we must take the current when it serves, Or lose our ventures.”

————————–
মোঃ নাজিম উদ্দিন

88 COMMENTS

  1. Nice post. I learn something more challenging on different blogs everyday. It will always be stimulating to read content from other writers and practice a little something from their store. I’d prefer to use some with the content on my blog whether you don’t mind. Natually I’ll give you a link on your web blog. Thanks for sharing.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here