জুমাদিবসের ভাবনা : মানুষের চাওয়া

Nov 17, 2023 | আত্মউন্নয়ন ও মোটিভেশন, ধর্ম, জীবন এবং জীবনভাবনা | 0 comments

Post View : 12
 

জুমা-দিবসের ভাবনা:
মানুষের চাওয়া পাওয়ার হিসাবগাঁথা

মানুস বড় বিচিত্র জীব। তার চাওয়া বিচিত্র। আঙ্গুলের ছাপের মতোই যেন চাহিদার বৈচিত্র্য!
কেউ চায় ধন, সম্পদ, টাকা-কড়ি, সুনাম, যশ, প্রতিপত্তি; কেউ চায় রবের দয়া, ক্ষমা, করুণা। কেউ দুনিয়ার বাদশাহী চায়, কেউ চায় দো’জাহানের মালিকের গোলামী: কেউ মখলুকের খোঁজের মরীচিকার পিছে সকাল সন্ধ্যাবধি ঘোড়দৌড় দেয় আর কেউ মালিকের সন্তুষ্টির আশায় আরামকে হারাম করে ছুটে নীরবে, নিবৃত্তে…

কেউ এ জগতে জীবদ্দশায় পরকালে করুণাময়ের করুণার আশায় সময় শ্রম ব্যয় করেন আর কেউ এ জীবনকেই একমাত্র জীবন ভেবে ছুটছে কাড়ি কাড়ি সম্পদের পিছে!
কে বোকা? কে বা বুদ্ধিমান?

দুনিয়ার খোঁজে ছুটে চলা বৈষয়িক মানুষ পরকালের জন্য ছুটে চলা মানুষদের বোকাই ভাবে! আর রবের খোঁজে যারা ছুটে, তারা হয়তো এতো সব ভেবে সময়ক্ষেপণও করেনা! কি বিচিত্র ভাবনাযুগল!

বলখ শহরের বাদশা আদহামের ঘটনাটা মনে পড়ে যায়.. কে আসল? কে নকল?
‘হিরা ফেলে কাঁচ তোলে ভিখারী সেজেছি আমি’ -এ যেন পরকালে মানুষের আফসোসের এক প্রারম্ভিকা!
এ চাওয়ার শেষ কই? মৃত্যু।

পৃথিবীর বুকে দৌড়ানো মানুষের এতো সব গ্রুপের মধ্যে কে সফল?
কে ব্যর্থ?
এ প্রশ্ন আপেক্ষিক। কোরআন কি বলে?

‘জীব মাত্রই মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করবে। আর কেয়ামতের দিনই তোমাদের কর্মফল পূর্ণমাত্রায় দেওয়া হবে। সুতরাং যাকে (জাহান্নামের) আগুন থেকে দূরে রাখা হবে এবং বেহেশতে প্রবেশ করানো হবে; সেই হবে সফলকাম। আর পার্থিব জীবন ছলনাময় ভোগের সামগ্রী ছাড়া আর কিছুই নয়।’
(সুরা আল-ইমরান : আয়াত ১৮৫)।

আল্লাহ ক্ষমা করুন আমাদের।


মোঃ নাজিম উদ্দিন
নভেম্বর ১৭, ২০২৩