Post View : 26
 

জীবন যখন শেখায় -পর্ব ৪

২৮) এ কথা সত্য যে, আপনার যে বন্ধু বা স্বজন ব্যস্ততার মাঝেও আপনার খোঁজ নেন বা কল ধরতে না পারলেও কল ব্যাক করেন, তিনি একেবারে বেকার, ফ্রি বা অতি সহজলভ্য ভাববেন না, বরং তিনি সম্পর্কের গুরুত্ব দেন।৷

২৯) মানুষ স্বভাবতই অকৃতজ্ঞ। তাই কারো উপকার করার সময় তার কাছ থেকে কৃতজ্ঞতা পাওয়ার প্রত্যাশা একেবারে জিরো লেভেলে নামিয়ে আনুন। আখেরে মনে কষ্ট পাবেননা।

৩০) মানুষকে আশা দিন, ইতিবাচক ভাবনা দিন, দিন ভরসা, কারণ হতাশা বা নেতিবাচকতা তার মধ্যে এমনিতেই বিদ্যমান থাকে। কে জানে, আপনার একটি আশার বাণী বদলে দিতে পারে তার জীবন ভাবনা, জীবনবোধ…

৩১) নিজের সাথে নিজের বোঝাপড়া জরুরী। অন্যের কাছে ভালো হওয়ার প্রতিযোগিতায় না নেমে নিজের সাথে আলোচনায় জেনে নিন আপনি যা করছেন তা সঠিক কিনা; যদি দেখেন, আপনার কাজ সঠিক, তাহলে কাজে নে পড়ুন।

৩২) বেশিরভাগ মানুষ আপনার অর্জন দেখেই আপনাকে বিচার করে, সম্মানিত বা অসম্মানিত করে; তাই নিজের দুঃখের বা ব্যর্থতার কথা বলে বেড়ানোর প্রয়োজন নেই। সর্বোত্তম কাজটিই করুন। বাকি কথা সময়ই বলে দিবে।

—-
চলবে…

মোঃ নাজিম উদ্দিন
জুন ১৬, ২০২৪