আগামি ২৫ বছরে যে ১৮ রকমের চাকুরি বা পেশার বিলুপ্তির সম্ভাবনা

97
62

আগামি ২৫ বছরে যে ১৮ রকমের চাকুরি বা পেশার বিলুপ্তির সম্ভাবনা
(Joe McKinle এর মূল লেখা অবলম্বনে)

—-

আপনি কি জানেন, আপনার বর্তমান পেশা বা চাকুরিটি সামনের দিনগুলোতে বিলুপ্ত হওয়ার সম্ভাবনা আছে কি না? আপনার জব বা পেশা যদি নিচের তালিকায় থাকে, তাহলে তা বর্তমানে যত ভালোই হোক- বিলুপ্তি বা বন্ধ হওয়ার ঝুঁকিতে আছে।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বিশেষজ্ঞ এবং venture capitalist Mr. Kai-Fu Lee এর সাথে ৬০ মিনিটের একটি সাক্ষাতকারে তিনি ভবিষ্যত বাণী দেন, আগামি ১৫ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে বর্তমান বিশ্বে প্রচলিত চাকুরি বা জবের প্রায় ৪০ শতাংশ রোবট দ্বারা সম্পাদিত হবে। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সমীক্ষা মতে, কর্মজীবিদের এক বিরাট অংশ বেকারত্বে ভুগবে, বিশেষত যে সব জবে অযান্ত্রিক পদ্ধতিতে মানুষের প্রয়োজন হয়, সে সব জবে।
এ সত্যটা অনেকের জন্যও সমস্যা হিসেবে দেখা দিতে পারে, এমনকি আপনার বেলায়ও। কিন্তু আপনি যদি জানেন- কোন কাজে নামতে হবে বা কোনটা প্রত্যাশা করতে হবে, তবে আপনি নতুন পরিিকল্পনা করে নতুন দক্ষতা বৃদ্ধি, নতুন ক্ষেত্র তৈরি করতে পারেন।
নিচে কিছু জবের তালিকা দেয়া হলো যেগুলো আগামি দু’তিন দশকের মধ্যে বিলুপ্ত হবে বলে কর্মসংস্থান বিশেষজ্ঞগণ মনে করেনঃ

১) ওয়্যারহাউজ বা গোডাউন কর্মীঃ
আমাজনসহ অনলাইন সাইটগুলো বৃদ্ধির ফলে অটোমেটিক ওয়্যারহাউজ বৃদ্ধি পেয়েছে, যা রোবট কর্তৃক পরিচালিত হচ্ছে ২৪/৭ কাজ করার সক্ষমতা নিয়ে।

২) টেক্সি ড্রাইভার, উবার চালক এবং রাইড শেয়ারিং ড্রাইভার
স্বয়ংক্রিয় স্বনিয়ন্ত্রিত এপসভিত্তিক গাড়ি যাত্রীদের প্রয়োজন অনুযায়ী যাত্রী উঠানামা করাবে। চালকবিহীন গাড়িতে ক্রেডিট বা অনুরূপ কার্ডের মাধ্যমে বিল পরিশোধ হবে- জানালেন ক্যারিয়ার ও কর্মসংস্থান বিশেষজ্ঞ লরা হেন্ডিক
FitSmallBusiness.com নামক ওয়েবসাইটে জানান।

৩) পে-রোল বিভাগের কর্মচারিঃ
সালিকন ভ্যালীর মানবসম্পদ বিশেষজ্ঞ পেট্রিক এলগ্রিম বলেন, Gusto এর মতো আরো পে-রোল সিস্টেমের উৎকর্ষ ঘটলে পে-রোল ক্লার্ক, সমন্বয়কসহ বিভিন্ন পদে মানবসম্পদের চাহিদা খুবই কমে যাবে।

৪) মূল্য বিশ্লেষকের পদঃ

বিভিন্ন ক্ষেত্রে সফটওয়ার ও A1  Algorithসহ প্রযুক্তির উৎকর্ষতায় মূল্য বিশেষজ্ঞ  বা pricing analysts এর কাজ কমে আসবে বলে জানান
মানবসম্পদ বিশেষজ্ঞগণ।

৫) কার মেরামতকারীঃ
স্বনিয়ন্ত্রিত বা চালকবিহীন গাড়ি, বৈদ্যুতিক কার ইত্যাদি বাগার সাথে সাথে কিছু মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার
ছাড়া কার মেরামতের কাজটি পুুরোপুরি কম্পিউটার ও প্রযু্ক্তির বিভিন্ন শাখা দ্বারা পরিচালিত হবে।

৬) কারখানার মাত্রাতিরিক্ত শ্রমিকঃ
রোবটিক যন্ত্রপাতি, প্রযুক্তির বহুবিদ ব্যবহার ইত্যাদির ফলে কারখানা শ্রমিকের অনেক কাজ স্বয়ংক্রিয়ভাবে সম্পাদন করা হবে, যার ফলে শ্রমিকের প্রয়োজনীয়তা অনেক কমে যাবে।

৭) গভীর সমুদ্রে ডুবুরীঃ
রোবট এবং ড্রোনের ব্যবহার বৃদ্ধির ফলে ঝুঁকিপূর্ণ পদ্ধতিতে ডুবুরির কাজ দিন দিন হ্রাস পেতে থাকবে।

৮) এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলারঃ
নিখুঁতভাবে এয়ার ট্রাফিক কন্টোলের জন্য মানবনির্ভর পদ্ধতির চেয়ে প্রযুক্তিনির্ভর পদ্ধতিতে এগুচ্ছে বিশ্ব।

৯)  ফাস্ট ফুডের বয়ঃ
জাপানে মানবাকৃতার রোবট দ্বারা রেস্টুরেন্টে খাবারের অর্ডার নেয়া বা সার্ব করা চালু হয়েছে। সেল্ফ সার্ভিস তো আছেই।

১০) গ্রন্থাগারিকঃ
প্রযুক্তির ছোঁয়ায় মানুষের জীবনধারা যেমন বদলাচ্ছে, তেমনি বই পড়ার চেয়ে ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে ই-বুক এবং অডিও বুক পড়ার ক্ষেত্রে মানুষের দৃষ্টিভঙ্গিও পাল্টেছে। ফলে রাতারাতি গ্রন্থাগারিকদের জব জয়তো উদাও হবেনা, তবে দীর্ঘ মেয়াদে তা শুন্যের কোটায় নামতে পারে বলে জানালেন ResumeLab এ কর্মরত ক্যারিয়ার বিশেষজ্ঞ Roger Maftean।

১১) বাণিজ্যিক পদ্ধতির চিত্রশিল্পীঃ

বাণিজ্যিক আকারের চিত্রকর্মে যেমন আগ্রহ কমে আসছে, তেমনি দেয়ালে ওয়াল-পেইন্টিংদিনে দিনে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে যা অদূর ভবিষ্যতে বাণিজ্যিক পদ্ধতির চিত্রশিল্পকে হুমকির মুখে ফেলে দিবে।

১২) কাস্টমার সার্ভিস প্রতিনিধিঃ

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার উৎকর্ষে রোবট, চ্যাটবটের ক্রমবর্ধমান উন্নতি কাস্টমার সার্ভিসের জন্য হুমকিস্বরূপ। ইতোমধ্যে টেলিফোন-মোবাইলের মাধ্যমে অনেক ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ কাস্টমার সার্ভিসের কাজ সমাধা করা হচ্ছে যা অদূর ভবিষ্যতে কাস্টমার সার্ভিসে প্রযুক্তিনির্ভর ডিভাইসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে নিয়োগকারী প্রতিষ্টানদের।

১৩) কম্পিউটার মেরামতকারী বা টেকনিসিয়ানঃ
ইউটিউবসহ বিভিন্ন মাধ্যমে কাস্টমার ফ্রেন্ডলি পদ্ধতির ফলে ইতোমধ্যেই কম্পিউটার চালানো অনেক সহজতর হয়েছে।
প্রযুক্তির উৎকর্ষতায় কম্পিউটার অটো বা সেল্ফ ডায়াগনসিসের দিকে এগিয়ে যাবে বলে ধােণা করা হচ্ছে।

১৪) অনুবাদকারীঃ

অনলাইন অনুবাদ, গুগল ট্রানসলেশন ইত্যাদির ফলে ভাষা জানা বা অন্য ভাষায় রূপান্তর সহজতর হয়ে পড়েছে যা দীর্ঘমেয়াদে অনুবাদকারীর পেশার বিকল্প হিসেবে দাড়াবে।

১৫) ক্যাশিয়ার বা কোষাধ্যক্ষঃ
এটিমসহ প্রযুক্তিগত উৎকর্ষ, মোবাইল এপস ইত্যাদির ক্রমবৃদ্ধির ফলে ক্যাশিয়ারের কাজ দিন দিন কমে আসবে বলে জানালেন
Farmingdale State College এর সহকারি অধ্যাপক এবং Consulting for Talent এর Vice President ডঃ এস, ওয়াই ইসলাম।

১৬) মর্টগেজ ব্রোকারঃ
অর্থনৈতিক মন্দার সময় ফুলে ফেপে উঠা রিয়্যাল এস্টেটের ব্রোকারেরা এক বড় ধরণের ধাক্কা খেয়েছে।

১৭) টোল সংগ্রহকারী বা অপারেটরঃ

সড়ক বা সেতুর টোল সংগ্রহ অনেকাংশে অটোমেটেড হয়ে পড়েছে। ক্রেডিট কার্ড বা এপসের মাধ্যমে পেমেন্ট, অনলাইন পেমেন্ট, বার্ষিক মেম্বারশীপ ইত্যাদির ফলে টোলের অর্থ সংগ্রহে মানব সংগ্রহকারীর সংখ্যা কমে এসেছে বহুলাংশে।

১৮) ব্যাংকের ক্যাশ অফিসার বা টেলারঃ
“শ্রম অধিদপ্তরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, আমেরিকায় ২০২৬ সালের মধ্যে ৪১,৮০০টি ব্যাংক টেলারের চাকুরির পদ শুন্য হবে।”  ২৪/৭ এটিএম, মোবাইল ব্যাংকিং অপশন,
ডিজিটাল ওয়ালেট বৃদ্ধি ইত্যাদির ফলে ক্যাট টাকা কাউন্টার থেকে উত্তোলনের প্রনণতা কমে।যাচ্ছে দিন দিন। আমাদের দেশেও এর ব্যতিকশ নয়।

এমতাবস্থায়, সময়ের সাথে যুগের পরিবর্তনের সাথে সাথে নতুন নতুন
দক্ষতা বৃদ্ধি, প্রযুক্তিগত জ্ঞান ইত্যাদি
বাড়ানোর উপর জোর দেয়া উচিত।
নইলে অনেক পেশার মতো আগামিদিনে আপনিও সেকেলে, অগৃহীত হবেন, বৈ কি!

————-
অনবাদক
মোঃ নাজিম উদ্দিন
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

(অনুবাদে অনুবাদকের লেখনশৈলী, ভাষাজ্ঞান প্রয়োগ করা হয়েছে).

97 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here