অনুধাবন মাত্র!

অপরের কী আছে, আমার কী নাই, তাহার তুলনা করিতে করিতে আমাদের সকাল, বিকাল, রাত্রি পার হইয়া যায়…
অতঃপর আরো একটি দিবস, সপ্তাহ, বৎসর….সম্পূর্ণ জীবনটাই!!!

আপনার সন্তানের বিদ্যায়তনের সহপাঠীর অধ্যয়ন উৎকর্ষে বা প্রথম হইবার কারণে আপনার মনোকষ্ট জমাট বাঁধিয়া থাকে;
তাহাকে ‘আন্তরিক’ অভিনন্দন জানাইলেও আপনার মনের মধ্যে আপনার সন্তান প্রথম না হওয়ায় হতাশা আর দীর্ঘশ্বাস পুড়িয়ে মারিয়া থাকে।
আপনার বন্ধু বা সহপাঠীর সহিত অনেক বছর পর আকস্মিক সাক্ষাতে তাহার বর্তমান যশ, কড়ি, বৈভবের গল্প শুনিয়া আপনার মনে যদি আন্তরিক ভাল লাগা না আসে,তাহা হইলে এক্ষুণি নিজের ভেতরকার সেই ‘অপচিন্তা’কে দূর করিবার ব্যবস্থা করুন, জনাব।

আপনার প্রতিবেশীর বৈষয়িক উন্নতি দেখিয়া আপনি তাহার মত হইতে না পারার যে নিষ্পেষণ আপনার মনে বাসা বাঁধিয়াছে,তাহা আপনাকে কোথায় লইয়া যাইবে,তাহার ইয়ত্ত্বা নাই।
মনের জানালা বড় করুন। ভাবুন, আপনার যাহা আছে, তাহা পৃথিবীরর কাহারো নাই।
আপনার হাতের আঙ্গুলের চাপ, আই প্রিন্ট যেমন স্বতন্ত্র, পৃথিবীর সাড়ে ছয়-সাতশত কোটি মানুষের কারো সহিত মিল নাই,
তদ্রুপ আপনার মনন-মানসিক শক্তি, বুদ্ধি-ভিত্তিক ঐশ্বর্য, স্বপ্নের বিশালতা, ভাগ্যের পরিধি, অদৃষ্টের স্বর্গীয় লেখন, রিযিক-হায়াত-মাওত (মৃত্যু) – সবই স্বতন্ত্র, অালাদা।
আল্লাহ আপনার জন্য যাহা-যখন-যেইভাবে নির্ধারিত করিয়া রাখিয়াছেন, তাহা যথাসময়ে আপনার কাছে আসিবে, কেউ চাহিলেও রোধ করিতে পারিবে না। আর,
যাহা আপনার জন্য নির্ধারিত নহে, তাহা আপনার কাছে আসিবে না।
স্বপ্ন দেখতে গিয়ে, প্রার্থনায় চাইতে গিয়ে সুউচ্চ পর্বত, সূর্যসম অালোকময়তা, আকাশসম বিস্তৃত আশা করে প্রার্থনা করুন, স্বপ্নের পরিধি বাড়ান,
কিন্তু না পাইলে তাহা মানিয়া লইবার শক্তি রাখুন মনে।
আর যখন তুলনা করিবেন, নিচের জনের সহিতও তুলনা করুন। ভাবুন, আপনি খুব ধনী না হইলেও পাশের বাড়ির অঙ্গবিহীন পঙ্গু প্রতিবেশির চেয়ে তো ভাল আছেন।
আপনার সন্তান তত মেধাবি না হইলেও
সুস্থ আছেন, চেষ্টায়ও, তাতে সন্তুষ্টি লইয়া সামনে আগাইয়া যান; তাকে এ প্লাসপাইতেই হইবে, এই চাপ দিয়ে পত্রিকায় সেই সব শিরোনাম তৈয়ার করিবেন না, যেমন, ” এ প্লাস না পাইয়া এসএসসি পরীক্ষার্থীর আত্মহত্যা””।

শুকরিয়া করুন আপনার প্রাপ্তিতে। এখনও বেঁচে আছেন,সেইটাই বড় শোকরের বিষয়। চিন্তা করিয়া দেখুন,
ছোটবেলায় আপনার যে বন্ধু দুর্ঘটনায় বা কঠিন রোগে অকালমৃত্যু বহন করিয়া ইতি টানিয়াছে অনেক আগে, তার চেয়ে বেশিদিন আয়ুষ্কাল পাইয়া বাঁচিয়া রহিয়াছেন, তাহা কম কিসে?
না পাইবার হতাশা আর হৃদরোগ লইয়া নহে,
আশা ভরসা আর প্রার্থনা লইয়া বাঁচিবার চেষ্টা করুন।
শুভ সপ্তাহান্ত!!!!
Happy weekend!!!!

লেখাটি লিখেছেন